| |

Ad

ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলা, আটক ১

আপডেটঃ 8:38 pm | August 19, 2019

ঠাকুরগাঁও প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও এনটিভির জেলা প্রতিনিধি লুৎফর রহমান মিঠুর উপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম হয়েছেন তিনি। তাকে বাঁচাতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন আরো একজন। তাদের ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

রোববার দুপুর পৌনে তিনটার দিকে শহরের বাজারপাড়াস্থ নিজ বাড়ি প্রবেশ করার সময় রাস্তার উপরেই অতর্কিত হামলার শিকার হন তারা। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। এদিকে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা।আহত সাংবাদিক লুৎফর রহমান মিঠু জানান, নিজ বাড়িতে প্রবেশ করার সময় গেটের পাশেই আবু সাঈদ বাপ্পি নামে এক বখাটে ধারালো চাপাতি দিয়ে তার মাথায় কোপায়। এসময় মিঠুর বন্ধু সাদিক বাধা দিলে তাকেও জখম করা হয়। চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন আহত দুজনকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মিঠু আরো জানায়, বখাটে বাপ্পি অস্ত্র নিয়ে তার বাড়ির সামনে আগে থেকেই দাঁড়িয়ে ছিল। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই তার উপর হামলা চালায় বাপ্পি। মিঠুর ধারণা পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই তার উপর সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছে। পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে বখাটে বাপ্পিকে আটক করেছে।এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন উত্তরাঞ্চল ফেডারেল সাংবাদিক পরিষদের সভাপতি তৌহিদুর রহমান মানিক, মহাসচিব কৃষ্ণকুমার চাকি, ঠাকুরগাঁও প্রেস ক্লাব সভাপতি মনসুর আলী, ঠাকুরগাঁও টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ফিরোজ আমিন সরকার, সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান তানু, সাবেক সভাপতি জয়নাল আবেদিন বাবুল, পীরগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মেহের এলাহী, হরিপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিকুল আজম চৌধুরী সুজা, সাধারণ সম্পাদক এমএ রশিদ, বালিয়াডাঙ্গী প্রেস ক্লাবের সভাপতি রমজান আলীসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা। তারা ঘটনার সাথে জড়িত বখাটে বাপ্পির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।